PDF Books

অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf

আজকে আমরা প্রকাশ করতে যাচ্ছে অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf বই। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf বইটি ফ্রী ডাউনলড করে পড়ে নিন এখনি।

আমার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে জীবনের সব থেকে মূল্যবান সময়গুলাে কারাবন্দি হিসেবেই কাটাতে হয়েছে। জনগণের অধিকার আদায়ের আন্দোলন করতে গিয়েই তাঁর জীবনে বার বার এই দুঃসহ নিঃসঙ্গ কারাজীবন নেমে আসে। তবে তিনি কখনও আপােস করেন নাই। ফাঁসির দড়িকেও ভয় করেন নাই। তাঁর জীবনে জনগণই ছিল অন্তঃপ্রাণ । মানুষের দুঃখে তার মন কাঁদত। বাংলার দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটাবেন, সােনার বাংলা গড়বেন—এটাই ছিল তাঁর জীবনের একমাত্র ব্রত। অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, স্বাস্থ্য—এই মৌলিক অধিকারগুলাে পূরণের মাধ্যমে মানুষ উন্নত জীবন পাবে, দারিদ্র্যের কশাঘাত থেকে মুক্তি পাবে, সেই চিন্তাই ছিল প্রতিনিয়ত তার মনে । যে কারণে তিনি নিজের জীবনের সব সুখ আরাম আয়েশ ত্যাগ করে জনগণের দাবি আদায়ের জন্য এক আদর্শবাদী ও আত্মত্যাগী রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন, বাঙালি জাতিকে দিয়েছেন স্বাধীনতা।

 

 

অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf file download

বাঙালি জাতিকে বীর হিসেবে বিশ্বে দিয়েছেন অনন্য মর্যাদা, স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ নামে বিশ্বে এক রাষ্ট্র সৃষ্টি করেছেন। বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্ন সফল করেছেন। বাংলার মানুষের মুক্তির এই মহানায়ক স্বাধীনতা সংগ্রাম শেষে যখন জাতীয় পুনর্গঠন ও অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জন নিশ্চিত করছিলেন তখনই ঘাতকের নির্মম বুলেট তাঁকে জনগণের কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে। স্বাধীন বাংলার সবুজ ঘাস তাঁর রক্তে রঞ্জিত হয়েছে। বাঙালি জাতির ললাটে চিরদিনের জন্য কলঙ্কের টিকা এঁকে দিয়েছে খুনিরা।

এই মহান নেতা নিজের হাতে স্মৃতিকথা লিখে গেছেন যা তার মহাপ্রয়াণের উনত্রিশ বছর পর হাতে পেয়েছি। সে লেখা তাঁর ছােটবেলা থেকে বড় হওয়া, পরিবারের কথা, ছাত্র জীবনের আন্দোলন, সংগ্রামসহ তাঁর জীবনের অনেক অজানা ঘটনা জানার সুযােগ এনে দেবে। তাঁর বিশাল রাজনৈতিক জীবনের এক বিচিত্র অভিজ্ঞতা এই গ্রন্থে তার লেখনীর ভাষায় আমরা পাই। তিনি যা দেখেছেন, উপলব্ধি করেছেন এবং রাজনৈতিকভাবে পর্যবেক্ষণ করেছেন সবই সরল সহজ ভাষায় প্রকাশ করেছেন। তাঁর এই সংগ্রাম, অধ্যাবসায় ও আত্মত্যাগের মহিমা থেকে যে সত্য জানা যাবে তা আগামী প্রজন্মকে অনুপ্রাণিতকরবে।

অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf file download 
অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf file download

ইতিহাস বিকৃতির কবলে পড়ে যারা বিভ্রান্ত হয়েছেন তাদের সত্য ইতিহাস জানার সুযােগ করে দেবে গবেষক ও ইতিহাসবিদদের কাছে এ গ্রন্থ মূল্যবান তথ্য ও সত্য তুলে। ধরবে। | এই আত্মজীবনী আমার পিতার নিজ হাতে লেখা। খাতাগুলাে প্রাপ্তির পিছনে রয়েছে এক লম্বা ইতিহাস । এই বইটা যে শেষ পর্যন্ত ছাপাতে পারব, আপনাদের হাতে তুলে দিতে পারব সে আশা একদম ছেড়েই দিয়েছিলাম। ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ মধ্যরাতে স্বাধীনতার ঘােষণা দেয়ার পরপরই আমাদের ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কের বাড়িতে (পুরাতন), (বর্তমান সড়ক নম্বর ১১, বাড়ি নম্বর ১০)। পাকিস্তানী সেনাবাহিনী হানা দেয় এবং আমার পিতাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। তাকে। গ্রেফতারের পর আমার মা ছােট দুই ভাই রাসেল ও জামালকে নিয়ে পাশের বাড়িতে আশ্রয় নেন। এরপর আবার ২৬শে মার্চ রাতে পুনরায় সেনারা হানা দেয় এবং সমগ্র বাড়ি লুটপাট করে, ভাঙচুর করে। অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf.

বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf

বাড়িটা ওদের দখলেই থাকে। এই বাড়িতে আব্বার শােবার ঘরের সাথে একটা ড্রেসিংরুম রয়েছে, সেখানে একটা আলমারির উপরে এক কোণে খাতাগুলাে আমার মা যত্ন করে রেখেছিলেন। যেহেতু পুরনাে মলাটের অনেকগুলাে খাতা, যার মধ্যে এই আত্মজীবনী ছাড়াও স্মৃতিকথা, ডায়েরি, ভ্রমণ কাহিনী এবং আমার মায়ের হিসাব লেখার খাতাও ছিল, সে কারণে ওদের কাছে আর এগুলাে লুটপাট করার মত মূল্যবান মনে হয়নি। তারা সেগুলাে ওভাবে ফেলে রেখে যায়, খাতাগুলাে আমরা অক্ষত অবস্থায় পাই।। | ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট ৩২ নম্বর সড়কের বাড়িতে পরিবারের সকলকে হত্যার পর তৎকালীন সরকার বাড়িটা বন্ধ করে রেখেছিল। ১৯৮১ সালের ১৭ মে আমি প্রবাস থেকে দেশে ফিরে আসি। তখনও বাড়িটা জিয়া সরকার সিল করে রেখেছিল। আমাকে। ঐ বাড়িতে প্রবেশ করতে দেয় নাই। এরপর ওই বছরের ১২ জুন সাত্তার সরকার আমাদের। কাছে বাড়িটা হস্তান্তর করে। তখন আব্বার লেখা স্মৃতিকথা, ডায়েরি ও চীন ভ্রমণের খাতাগুলাে পাই।

আত্মজীবনী লেখা খাতাগুলাে পাইনি। কিছু টাইপ করা কাগজ পাই যা উইপােকা খেয়ে ফেলেছে। ফুলস্কেপ পেপারের অর্ধেক অংশই নেই শুধু উপরের অংশ আছে। এসব অংশ পড়ে বােঝা যাচ্ছিল যে, এটি আব্বার আত্মজীবনীর পাণ্ডুলিপি, কিন্তু। যেহেতু অর্ধেকটা নাই সেহেতু কোন কাজেই আসবে না। এরপর অনেক খোঁজ করেছি। মূল খাতা কোথায় কার কাছে আছে জানার চেষ্টা করেছি। কিন্তু কোন লাভ হয় নাই । এক পর্যায়ে এগুলাের আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম। ইতােমধ্যে ২০০০ সাল থেকে আমরা বঙ্গবন্ধুর লেখা স্মৃতিকথা, নয়াচীন ভ্রমণ ও ডায়েরি প্রকাশের প্রস্তুতি গ্রহণ করি। আমেরিকার জর্জ টাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর এনায়েতুর রহিম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন বঙ্গবন্ধুর উপর গবেষণা করতে। বিশেষ করে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা—এই বিষয়টা ছিল তাঁর গবেষণার বিষয়বস্তু। তিনি । মাহাবুবউল্লাহ-জেবুন্নেছা ট্রাস্ট কর্তৃক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠিত ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুররহমান চেয়ার’-এ যােগ দেন ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা’ গবেষণার জন্য। এই গবেষণা কাজ করার সময় বঙ্গবন্ধুর জীবন, স্মৃতিকথা ও ডায়েরি নিয়েও কাজ শুরু করেন। আমি ও সাংবাদিক বেবী মওদুদ তাকে সহায়তা করি। ৬, এনায়েতুর রহিম বাংলা থেকে ইংরেজি অনুবাদ করতে শুরু করেন ।

pdf শেখ মুজিবুর রহমান অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf free download

কিন্তু তার অকাল মৃত্যুতে এই কাজে বিরাট ক্ষতি সাধিত হয়। এভাবে হঠাৎ করে তিনি চলে যাবেন তা স্বপ্নেও ভাবতে পারি নাই। আমি এ অবস্থায় হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। এ সময় ইতিহাসবিদ প্রফেসর এ. এফ. সালাহউদ্দীন আহমদ, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী প্রফেসর শামসুল হুদা হারুন, লােকসাহিত্যবিদ ও গবেষক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান এ ব্যাপারে আমাদের মূল্যবান পরামর্শ ও সহযােগিতা দিয়েছেন। পরবর্তীকালে প্রফেসর সালাহউদ্দীন আহমদ ও শামসুল হুদা হারুন অনুবাদের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। শামসুজ্জামান খানের সঙ্গে আমি ও বেবী মওদুদ মূল বাংলা পাণ্ডুলিপি সম্পাদনা, কম্পােজ ও সংশােধনসহ অন্যান্য কাজগুলাে সম্পন্ন করি। মূল খাতার সঙ্গে মিলিয়ে পড়ি বারাে-চৌদ্দ বার । অনেক বাধা বিঘ্ন অতিক্রম করেই কাজ এগােতে থাকে। ছাপাতে দেবার একটা সময়সীমাও ঠিক করা হয়। | যখন ‘স্মৃতিকথা’ ও ‘ডায়েরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে সেই সময় আমার হাতে এল নতুন চারখানা খাতা, যা আত্মজীবনী হিসেবে লেখা হয়েছিল। এই খাতাগুলাে পাবার পিছনে একটা ঘটনা রয়েছে। আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্টে বঙ্গবন্ধু এভেনিউতে আওয়ামী লীগের এক সমাবেশে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা হয়। অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf .

মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আইভী রহমানসহ চব্বিশজন মৃত্যুবরণ করেন। আমি আশ্চর্যজনকভাবে বেঁচে যাই। এই ঘটনার পর শােক-কষ্ট-বেদনায় যখন জর্জরিত ঠিক তখন আমার কাছে এই খাতাগুলাে এসে পৌছায়। এ এক আশ্চর্য ঘটনা । এত দুঃখ-কষ্ট-বেদনার মাঝেও যেন একটু আলাের ঝলকানি। আমি ২১ আগস্ট মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এসেছি। মনে হয় যেন নতুন জন্ম হয়েছে। আর সেই সময় আমার হাতে এল আব্বার হাতের লেখা এই অমূল্য আত্মজীবনীর চারখানা খাতা! শেষ পর্যন্ত এই খাতাগুলাে আমার এক ফুফাতাে ভাই এনে আমাকে দিল। আমার আরেক ফুফাতাে ভাই বাংলার বাণী সম্পাদক শেখ ফজলুল হক মণির অফিসের টেবিলের ড্রয়ার থেকে সে এই খাতগুলাে পেয়েছিল। সম্ভবত আব্বা শেখ মণিকে টাইপ করতে দিয়েছিলেন, আত্মজীবনী ছাপাবেন এই চিন্তা করে। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তিনিও শাহাদাত্ত্বরণ করায় তা করতে পারেন নাই। কাজটা অসমাপ্ত রয়ে যায়। | খাতাগুলাে হাতে পেয়ে আমি তাে প্রায় বাকরুদ্ধ। এই হাতের লেখা আমার অতি চেনা। ছােট বােন শেখ রেহানাকে ডাকলাম । দুই বােন চোখের পানিতে ভাসলাম । হাত দিয়ে ছুঁয়ে ছুঁয়ে পিতার স্পর্শ অনুভব করার চেষ্টা করলাম। মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছিঃ তারপরই এই প্রাপ্তি। মনে হল যেন পিতার আশীর্বাদের পরশ পাচ্ছি। আমার যে এখনও দেশের মানুষের জন্য—সেই মানুষ, যারা আমার পিতার ভাষায় বাংলার দুঃখী মানুষ’,সেই দুঃখী মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের কাজ বাকি, তাঁর স্বপ্নের সােনার বাংলা গড়ার কাজ

 oshomapto attojiboni pdf

শাসকগােষ্ঠীর নানা চক্রান্ত ইত্যাদি বিভিন্ন ঘটনা ও ইতিহাস জানার সুযােগ হবে। আর সেই সঙ্গে কায়েমী স্বার্থবাদীদের নানা ষড়যন্ত্র এবং শাসনের নামে শােষণের অপচেষ্টাও তিনি তার অভিজ্ঞতা থেকে তুলে ধরেছেন। বাংলার মানুষ এখনও বড় কষ্টে আছে। আগামী প্রজন্ম এই লেখা পড়ে অনুপ্রাণিত হয়ে দেশসেবায় ব্রতী হবে সে প্রত্যাশা রাখছি। এ গ্রন্থে বঙ্গবন্ধু ১৯৫৫ সাল পর্যন্ত তার আত্মজীবনী লিখেছেন। অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf. ১৯৬৬-৬৯ সালে কেন্দ্রীয় কারাগারে রাজবন্দি থাকাকালে একান্ত নিরিবিলি সময়ে তিনি লিখেছেন। তিনি যেভাবে লিখেছেন আমাদের খুব বেশি সম্পাদনা করতে হয়নি। তবে কিছু শব্দ ও ভাষার সাবললীতা রক্ষার জন্য সামান্য কিছু সম্পাদনা করা হয়েছে। আত্মজীবনী হিসেবে প্রকাশের ইচ্ছা তাঁর ছিল বলে সে সময়ে টাইপ করতে দেন। তিনি এ গ্রন্থ কাউকে উৎসর্গ করে যাননি। প্রফেসর এ. এফ, সালাহউদ্দীন আহমদ এই আত্মজীবনীর কাজে শুরু থেকে সব সময় প্রয়ােজনীয় পরামর্শ দিয়েছেন। এর ইংরেজি অনুবাদের কাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ফকরুল আলম খুবই আন্তরিকতার সঙ্গে দ্রুত শেষ করেছেন। আমি তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। তাদের এই মূল্যবান পরামর্শ ও সহযােগিতা ছাড়া এই বিরাট দায়িত্ব পালন কখনােই সম্ভব হত না। এই গ্রন্থ প্রকাশনার কাজে অন্যান্য যারা সহযােগিতা করেছেন তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf.

শেখ হাসিনা ০৭.০৮,২০০৭ সাব জেল শেরে বাংলানগর, ঢাকা।

 

আরো পড়ুনঃ ছাগলের চিকিৎসা বই pdf Download Free [Update Book]

অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি নিয়ে কিছু প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্নঃ অসমাপ্ত আত্মজীবনী price কত?

উত্তরঃ অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটির তিন প্রকারের দাম নিয়ে বাজারে প্রকাশ করা হয়েছে ডিলাক্স, স্ট্যান্ডার্ড, ইকোনমি। দাম দথাক্রমে ৫৭৩, ৪৬৩, ১৬৫ টাকা। তবে আপনারা আমাদের এই নিবন্ধের মাধ্যমে অসমাপ্ত আত্মজীবনী pdf free download করে পড়তে পাববেন।

প্রশ্নঃ অসমাপ্ত আত্মজীবনী মোট কয়টি ভাষায় অনূদিত হয়েছে ২০২২?

উত্তরঃ এখনপর্যন্ত ইংরেজি, উর্দু, জাপানি, চিনা, আরবি, ফরাসি, হিন্দি, তুর্কি, নেপালি, স্পেনীয়, অসমীয়া, ইতালীয়,মালয়, কোরীয়, রুশ ,মারাঠি ও সর্বশেষ ২০২২ সালে গ্রীক ভাষায় বইটির অনুবাদ প্রকাশিত হয়েছে। আরো ভাষায় অনূদিত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

Shakil Daloar

Hello I'm Shakil Daloar I've completed my undergraduate and postgraduate degree from the Department of Economics at the National University and has been observing the economic, political, social and humanitarian aspects of the society since 2021. The attraction of people to the new is everlasting - so I write regularly on the study at home website.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button