Insurance

পদ্মা সেতুতে বসল ৩৮ তম স্প্যান, কাজ শেষ পর্যায়ের

পদ্মা সেতু  বাংলাদেশের স্বপ্নের সেতু, ধীরে ধীরে দৃশ্যমান হচ্ছে তার সম্পূর্ণরূপে।  পদ্মা সেতুতে বসল ৩৮ তম স্প্যান যার মাধ্যমে দৃশ্যমান হচ্ছে একের পর এক।

পদ্মা সেতুতে বসল ৩৮ তম স্প্যান, Podma bridge update 2021

আরো পড়ুন….

পদ্মা সেতুতে বসবে মোট ৪১ টি স্প্যান। ইতিমধ্যে পদ্মা সেতুতে বসল ৩৮ তম স্প্যান বসানোর কাজ। এবং সর্বশেষ আজ (শনিবার)) শেষ হচ্ছে ৩৮ তম স্প্যান বসানোর কাজ। পদ্মা সেতুর এই ৩৮ নম্বর স্প্যান বসবে ১ ও ২ নম্বর পিলারের মাঝে। পদ্মা সেতুর এক নম্বর পিলার আছে মাওয়া প্রান্তে, এজন্য  পিলারটিতে স্প্যান বসানোর কথা ছিল প্রথমদিকে কিন্তু ধারাবাহিকতা এবং এক একটি স্প্যানের মডেল এক একরকম হওয়ার কারণে ৩৮ তম স্প্যান বসছে ১ ও ২ নাম্বার পিলারে।

এক্ষেত্রে পদ্মা নদীর উপরে যে পদ্মা সেতু তৈরি হচ্ছে এর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ  হলে এটি হবে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ সেতু। পদ্মা সেতুর মোট দৈর্ঘ্য ৬ কিলোমিটার একটু বেশি এবং এর প্রস্থ ১৮.১০মিটার।

পদ্মা সেতু সেতুটি গঠিত হবে মোট ৪১ টি স্প্যানের এর সাহায্যে এবং সম্পূর্ণ পদ্মাসেতুতে থাকবে দুইটি স্তর যার উপরের স্তরে থাকবে চার লেন বিশিষ্ট সড়ক পথ এবং নিচের স্তরে থাকবে রেলপথ। পদ্মা সেতুর উপরের স্তরে যে চার লেনের সড়ক পথ নির্মাণ করা হবে তার প্রত্যেকটি লেনের প্রস্থ হবে ২২ গজ।বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর মতো দীর্ঘ সেতু নির্মাণ যেন এক বিস্ময়। কারণ আমরা জানি যে পদ্মা নদী পৃথিবীর ইতিহাসে দ্বিতীয় খরস্রোতা নদী।

আর এত প্রবল খরস্রোতা নদী তে সেতু নির্মাণ একটি বিস্ময়কর ব্যাপার। ধারণা করা হচ্ছে যে, পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলে পাল্টে যাবে বাংলাদেশের অর্থনীতি। কারণ পদ্মা সেতু সংযুক্ত করবে

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম ও উত্তর-পূর্ব অংশকে।

যা মুন্সিগঞ্জের সাথে সংযুক্ত করেছে শরীয়তপুর ও মাদারীপুর কে। তাছাড়াও পদ্মা সেতু নির্মাণ হলে,দেশের

দক্ষিণ-পশ্চিমাংশের সাথে ঢাকার সংযোগ হবে, কমবে যানজট ফলে পাল্টে যাবে বাংলাদেশের অর্থনীতি।

তাছাড়াও পদ্মা সেতুর মাধ্যমে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অতি সহজেই পৌঁছে দেয়া যাবে

গ্যাস ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা। যার ফলে অতি সহজে পাল্টে যেতে পারে বাংলাদেশের অর্থনীতির চিত্র।

উল্লেখ্য যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়  ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে। এই  সেতুর বিশাল পিলার

স্থাপনের জন্য জার্মানি থেকে আনা হয় বিশেষ আকৃতির হামার। তাছাড়াও তৈরি করা হয় পৃথিবীর সবথেকে বড় হামার। উল্লেখ্য যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ করছেন চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কনস্ট্রাকশন লিমিটেড কোম্পানি। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হবে ২০২১ সালের জুন মাসের দিকে। পদ্মা সেতুতে বসল ৩৮ তম স্প্যান যার মাধ্যমে কাজের গতি আরো গতিময় হল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button