অর্থনীতি

মিশ্র অর্থনীতি কি? মিশ্র অর্থনীতির প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলাে

আজকে আপনারে জানতে পারবেন মিশ্র অর্থনীতি কি? এবং মিশ্র অর্থনীতির প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলাে তাহলে চলুন শুরু করা যাক…………

মিশ্র অর্থনীতি‘ বলতে এমন একটি অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে বুঝায় যেখানে একদিকে সম্পদের ব্যক্তিগত
মালিকানা ও উদ্যোগের স্বাধীনতা এবং অন্যদিকে সরকারি উদ্যোগ ও নিয়ন্ত্রণ পাশাপাশি বিরাজ করে। মিশ্র অর্থনীতি হল পুঁজিবাদী অর্থনীতি ও সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতির পরস্পর বিরােধী কাঠামাের মধ্যে সামঞ্জস্য বিধানকারী এক বিশেষ ধরনের অর্থব্যবস্থা। মিশ্র অর্থব্যবস্থায় অর্থনীতির কতিপয় ক্ষেত্রের ভার বেসরকারি খাতের উপর ছেড়ে দেয়া হয় এবং কতকগুলাে ক্ষেত্র সরকারি খাতে পরিচালিত বা নিয়ন্ত্রিত হয়ে থাকে। মিশ্র অর্থনীতিতে সরকারি ও বেসরকারি উভয় খাতের পারস্পরিক সহযােগিতায় সকল অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়। মিশ্র অর্থনীতিতে পুঁজিবাদী অর্থনীতির ন্যায় সম্পত্তির ব্যক্তিগত মালিকানা, মুনাফা অর্জন ও ব্যক্তি উদ্যোগের স্বাধীনতা থাকে তেমনি সরকার ক্ষেত্র বিশেষে আইনের মাধ্যমে উৎপাদন, বিনিয়ােগ, বণ্টন ও ভােগ নিয়ন্ত্রণ করে।
অর্থনীতিবিদ স্যামুয়েলসন বলেন, “মিশ্র অর্থনীতি বলতে এমন একটি অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে বুঝায় যেখানে উৎপাদন ও ভােগকার্য সংগঠিত করার ক্ষেত্রে বাজার ব্যবস্থার সাথে সরকারি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার সংমিশ্রণ ঘটেছে।”(“A mixed economy is one in which the elements of government control are inter- mingled
with market elements in organising production and consumption”.

মিশ্র অর্থনীতি কি মিশ্র অর্থনীতির প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলাে
মিশ্র অর্থনীতি কি মিশ্র অর্থনীতির প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলাে

মিশ্র অর্থনীতি কি তা আগে জেনেছেন এবার মিশ্র অর্থনীতির প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলাে নিচে আলােচনা করা হল

১। ব্যক্তিগত মালিকানাঃ মিশ্র অর্থনীতিতে সম্পত্তি ও উৎপাদনের অন্যান্য উপাদানের উপর ব্যক্তিগত
মালিকানা স্বীকার করা হয়। তবে বিশেষ বিশেষ সম্পত্তির ক্ষেত্রে যেমন কৃষি জমি, শহরের আবাসিক জমি ইত্যাদি অনেক সময় ব্যক্তিগত মালিকানার উসীমা নির্ধারণ করে দেয়া হয়।

২। সরকারি মালিকানাঃ মিশ্র অর্থনীতিতে ব্যক্তিগত মালিকানার পাশাপাশি অনেক ক্ষেত্রে সরকারি মালিকানা বজায় থাকে। যেমন—দেশে মূল ও ভারী শিল্প স্থাপন, অস্ত্র ও গােলাবারুদ তৈরি এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা-বাণিজ্য রাষ্ট্র মালিকানায় স্থাপিত হয়ে থাকে।

৩। ব্যক্তিস্বাধীনতাঃ মিশ্র অর্থনীতিতে ব্যক্তি স্বাধীনতা অক্ষুন্ন থাকে। পুঁজিবাদী ব্যবস্থার ন্যায় মিশ্র অর্থনীতিতেও প্রত্যেকে ব্যক্তিগত উদ্যোগের স্বাধীনতা ভােগ করে। প্রত্যেক ব্যক্তি স্বাধীনভাবে নিজের পছন্দমত বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডে লিস্ত থাকে।

৪। মুনাফার উপস্থিতিঃ মিশ্র অর্থনীতিতে মুনাফা ব্যবস্থা লােপ করা হয় না। বেসরকারি উদ্যোগের ক্ষেত্রে
মুনাফার ভিত্তিতেই অর্থনৈতিক কাজ-কর্ম সম্পাদিত হয়। তবে সরকার দেশের জনগণের স্বার্থে অনেক সময় দাম ও মুনাফা নিণ করে থাকে।

৫। ভোক্তার সার্বভৌমত্বঃ মিশ্র অর্থনীতিতে ভােক্তার সার্বভৌমত্ব বজায় থাকে। ভােক্তার রুচি ও পছন্দের প্রতি লক্ষ্য রেখেই দ্রব্যসামগ্রী উৎপাদিত হয় এবং ভােক্তা তার পছন্দমত দ্রব্যসামগ্রী ক্রয় ও ভােগ করতে পারে। তবে সরকার প্রয়ােজনবােধে কোন কোন দ্রব্যের দাম ও উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে।

৬। দাম ব্যবস্থা : মিশ্র অর্থনীতিতে দাম ব্যবস্থার ভূমিকা অক্ষুন্ন থাকে। পুঁজিবাদী ব্যবস্থার ন্যায় মিশ্র
অর্থনীতিতেও চাহিদা ও যােগানের ঘাত-প্রতিঘাতে দ্রব্যমূল্য নির্ধারিত হয়। তবে প্রয়ােজ্জনবােধে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সরকার দ্রব্যমূল্য নিযুণ করে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

৭। সরকারি ও বেসরকারি খাতের সহাবস্থান ও মিশ্র অর্থনীতির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল সরকারি ও বেসরকারি খাতের সহাবস্থান। মিশ্র অর্থনীতিতে একদিকে যেমন বেসরকারি উদ্যোগে শিল্প-কলকারখানা পরিচালিত হয় তেমনি সরকারি উদ্যোগেও অনেক শিল্প-কলকারখানা, ব্যাংক ও বীমা প্রতিষ্ঠান প্রভৃতি পরিচালিত হয়ে থাকে। মিশ্র
অর্থনীতিতে সরকারি ও বেসরকারি উভয় প্রকার উদ্যোগই পাশাপাশি বিরাজ করে।

৮। অর্থনৈতিক পরিকল্পনা ও মিশ্র অর্থনীতিতে অর্থনৈতিক পরিকল্পনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মিত্র
অর্থনীতিতে জাতীয় অর্থনৈতিক লক্ষ্যসমূহ সরকার কর্তৃক নির্ধারিত হয় এবং সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে তা বাস্তবায়িত হয়। সরকারি ও বেসরকারি খাতে সম্পাদিত সকল অর্থনৈতিক কর্মকান্ড পরিকল্পনার মাধ্যমে সমন্বয় করা হয়।

আশাকরি মিশ্র অর্থনীতি কি? তা ভাল ভাবে বুঝতে পেরেছেন আরো কিছু জানার থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ

Related Articles

Back to top button